ব্যর্থতায় যে পাঁচ বিষয় শেখা যায়

ব্যর্থতায় যে পাঁচ বিষয় শেখা যায়

ব্যর্থতা শুধু ক্ষতি বয়ে আনে না, এতে বহু উপকারও হয়। সবার জীবনেই একসময় ব্যর্থতা আসতে পারে। তবে এতে আটকে না থেকে সামনে এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করতে হয়। ব্যর্থতা থেকে যেসব শিক্ষা লাভ করা যায় তার কোনো তুলনা হয় না। এ লেখায় রয়েছে তেমন কয়েকটি শিক্ষার কথা। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে ফোর্বস।

১. এগিয়ে যাওয়া সবকিছু যদি স্বাভাবিকভাবে চলতে থাকে তাহলে আপনি অনেক দ্রুত সামনে এগোতে পারবেন। যদিও এভাবে এগিয়ে যাওয়া কোনো বৈচিত্র্য প্রকাশ করবে না। এ কারণে বিষয়টি স্বাভাবিক নিয়মেই মেনে চলার মতো হবে। অন্যদিকে চলার পথে যদি উত্থান-পতন থাকে তাহলে তা আপনার জীবনকে বৈচিত্রময় করবে। এতে সামনে এগিয়ে যাওয়াকে উপভোগ করা যাবে। ব্যক্তিগত জীবন কিংবা কর্মক্ষেত্র, সবখানেই ব্যর্থতায় হতাশা আসবে এবং সাফলে আনন্দ আসবে এটাই স্বাভাবিক। আর উভয় বিষয় ছাড়া সম্পূর্ণ উপভোগ করা যাবে না। ব্যর্থতা ছাড়া সাফল্য অবান্তর।

২. সতর্ক হওয়ার শিক্ষা কোনো বিষয় ভেঙে গেলে আমাদের বড় ভুল হয়ে গেছে বলে মনে হতে পারে। আবেগগত বিষয় ছাড়াও থাকতে পারে আর্থিক কিংবা পেশাগত ক্ষতির বিষয়। আর এতে দুঃখবোধ হতেই পারে। তবে এ বিষয়টি আপনাকে বেশ কিছু বিষয় শিখতে সহায়তা করবে। যেমন একটি গ্লাস মাটিতে পড়ে ভেঙে গেলে আপনি ভালোভাবে সে স্থানটি পরিষ্কার করবেন। পরিবারের অন্য কোনো সদস্য যেন এখানে আঘাত না পায় সেজন্য বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করবেন। আর এ বিষয়টি ঘটতে পারে অন্য যে কোনো বিষয়েই। যে কোনো ভুল হলে তা সামলে ওঠার জন্য যা যা করা দরকার তা আপনার শেখা হবে।

৩. উদ্যম সংযত করা সবারই বহু সমস্যা থাকে। কেউ যখনই এ সমস্যায় ভিন্ন কোনো মাত্রা যোগ করে তখন তা এতে বাড়তি বিড়ম্বনা সৃষ্টি করে। কর্মক্ষেত্রে কোনো বিষয়ে সামান্য ভুল হলেই তাতে একে অন্যকে দায়ী করে জটিল পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে দেখা যায়। যখনই এমন কোনো পরিস্থিতি দেখা যায় তখনই তা মানুষের উদ্যমের প্রকাশ ঘটায়। এ ঘটনা উদ্যমকে সংযত হতেও সহায়তা করে। কারণ একবার ভুলের ফলে উদ্যমের যে বিশৃঙ্খলা দেখা যায়, দ্বিতীয়বার ভুলে তা হওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়। এতে পরবর্তীতে যেন এমন ভুল না হয় সেজন্য যথাযথ উদ্যমের সঙ্গে প্রস্তুতিও নেওয়া যায়।

৪. উদ্দেশ্য ঠিক করা যখনই কোনো ভুল হয় তখন মনে ঠিক কোন বিষয়টি আসে? অনেকেরই মনে প্রশ্ন আসতে পারে যে, আমি কিভাবে এত বড় ভুল করলাম? এক্ষেত্রে তখন স্বাভাবিকভাবেই চিন্তা আসতে পারে যে, আমি বাস্তবে এত বড় বোকা নই। কিন্তু উদ্দেশ্য সম্পর্কে সঠিকভাবে জানা না থাকায় এমন ঘটনা ঘটেছে। আর এ বিষয়টি পরবর্তীতে উদ্দেশ্য সামনে রেখে এগিয়ে যেতে সহায়তা করে।

৫. ভুল সামলে ওঠা একটি ভুলের পর তা সামলে ওঠাই স্বাভাবিক। আর এ থেকে শেখা যায় ভুল কাটিয়ে স্বাভাবিক হয়ে ওঠার উপায়। ব্যর্থতা মূলত এমন একটি বিষয় যা চলার পথে স্বাভাবিকভাবে আসতেই পারে। আর একে সামলে ওঠাও একটি শেখার বিষয়। ভুল করলে এ শিক্ষা আপনি পেয়ে যাবেন। আর পরবর্তীতে যেন এমন ভুল না হয়, সে উদ্যমও এ থেকে সঞ্চয় করা সম্ভব হবে।

source:www.kalerkantho.com

It's only fair to share...Share on FacebookShare on Google+Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *