চূড়ান্ত সফলতা দেবে ৫০টি চিরন্তন সত্য

চূড়ান্ত সফলতা দেবে ৫০টি চিরন্তন সত্য

যে পথেই ক্যারিয়ার গড়তে চান বা যাই করেন না কেন, কিছু চিরন্তন সত্য আপনাকে সব সময় পথের দিশা দেবে। এগুলোকে ব্যবসার মৌলিক চিরন্তন সত্য বলে গণ্য করেন বিশেষজ্ঞরা। জেনে নিন বিজনেই ইনসাইডারের প্রতিবেদনে।

১. শখের কাজকে পূর্ণদিবস কর্মে রূপান্তরিত করার প্রয়োজন নেই। তবে যে কাজই করবেন তার প্রতি টান থাকতে হবে।

২. কাজটি মনঃপুত না হলে এমন কারণ রয়েছে যার জন্যে আপনি কাজটি করে যাচ্ছেন। ওই কারণগুলোর প্রতি আবেগ রাখুন।

৩. ইতিবাচক মানুষের চারপাশে ৪. মেধার প্রয়োগ ঘটিয়ে যদি সব কাজ করতে যান তবে সুফল আসবে।

৪. মেধার প্রয়োগ ঘটিয়ে যদি সব কাজ করতে যান তবে সুফল আসবে।

৫. দুর্বলতা কাটিয়ে উঠতেই যদি সদ্য ব্যস্ত থাকেন তবে দিনশেষে হতাশায় নিমজ্জিত হবেন।

৬. নতুন কিছুতে দক্ষ হতে মৌলিক উপায়ে চেষ্টা করুন।

৭. মনের সজীবতা ধরে রাখতে নতুন কিছু শিখতে থাকুন।

৮. নতুন কিছু শেখা মানে আপনি তাতে নতুন। কাজেই ভুল হতেই পারে।

৯. নতুন কাজের ভুলগুলো যত সহজে নিতে পারবেন, ততই দ্রুত শিখতে পারবেন।

১০. যদি মনে করেন পরিবর্তন জরুরি, তবে সবার আগে আপনি বদলে যান।

১১. ছোট থেকে শুরু করুন।

১২. সহজ কাজ দিয়ে শেখার শুরু করুন। পরে কঠিনের দিকে যাবেন।

১৩. সামান্য কাজ থেকে নেতৃত্ব, সবখানে ভালো করার চেষ্টা করুন।

১৪. এগিয়ে যেতে হবে অথবা ত্যাগ করতে হবে, এই অন্তিম মুহূর্তে সিদ্ধান্ত নেওয়া সবচেয়ে কঠিন।

১৫. কোনো কাজে পাগলামি বলতে একই উপায়ে ভিন্ন ফলাফল আশা করা বোঝায়।

১৬. কেউ একার চেষ্টায় সফলতা পায় না।

১৭. সাহায্য চান। কেউ চাইলে আন্তরিক চেষ্টা করুন। সাহায্য পেলে কৃতজ্ঞ থাকুন।

১৮. মানুষ একই পরিস্থিতিতে ভিন্ন ভিন্ন অভিজ্ঞতা লাভ করে।

১৯. যাকে শ্রদ্ধা করতে হয় তাকে যে মন থেকে ভালো লাগতে হবে এমন কোনো কথা নেই।

২০. করা উচিত- এমন ভার কারো ওপর ন্যস্ত করবেন না।

২১. ভিন্নতাকে মেনে নিন। বৈচিত্র্য পরিবেশে মানিয়ে নিন।

২২. কতটুকু সফল হয়েছেন তা কোনো ব্যাপার না। কারণ আরো বেশি সফল মানুষ আছেন।

২৩. আবার কিছুই নেই এমন মানুষও অসংখ্য।

২৪. সময়, অর্থ, সাহায্য ইত্যাদি উৎস সব সময় থাকবে না।

২৫. উৎসের অভাব কোনো ওজর হতে পারে না। সমাধানে আপনাকে সৃষ্টিশীল হতে হবে।

২৬. সৃষ্টিশীলতা এবং উদ্ভাবনী ক্ষমতা এমন দুই দক্ষতা যার দ্বারা গতানুগতিক বিষয়গুলো আরো ফলপ্রসু উপায়ে করা যেতে পারে। ২৭. কর্মজীবনের শুরুতে অনেক কিছুর প্রতি ‘হ্যাঁ’ বলতে হবে। পরে ‘না’ বলতে শিখতে হবে।

২৮. নেতিবাচক ফিডব্যাকের প্রয়োজন আছে। সত্য বোঝার চেষ্টা করুন।

২৯. আবার সামান্য সাহায্য পাওয়ার আগেও দ্রুত গ্রহণ করবেন না। আসল ঘটনা বোঝার চেষ্টা করুন।

৩০. নিজের মতামতকে বদলাতে অন্যের মতামতকে শক্তিশালী হতে দেবেন না।

৩১. যখন সমালোচনা করবেন, তখন কাজটি নিয়ে করুন। যিনি করেছেন তাকে নিয়ে নয়।

৩২. বড় কিছু করার স্বপ্ন দেখুন।

৩৩. স্বপ্নকে গন্তব্য বলে জ্ঞান করুন। সেখানে পৌঁছতে নানা কাজ করতে হবে।

৩৪. যখন বড় কিছু নিয়ে চিন্তা করবেন তখন মানুষের কাছ থেকে ‘না’ কথাটি বেশি শুনবেন। সিদ্ধান্ত আপনাকেই নিতে হবে।

৩৫. যখন সফল হবেন তখন আপনার ওপর চাপ বাড়বে। আরো বেশি সুযোগ আসবে। এই সুযোগ নেওয়ার চেষ্টা করুন।

৩৬. সফল হতে গোপন কোনো পথ না থাকলে মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ এবং কাজগুলো সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করে যেতে হবে।

৩৭. পরিচিতের গণ্ডি বৃদ্ধি করতে থাকুন।

৩৮. কোন ধরনের প্রযুক্তি আপনার প্রতিষ্ঠানকে এগিয়ে নিচ্ছে তা কোনো বিষয় নয়। মূলত পণ্য নিয়ে চিন্তা করুন।

৩৯. যত সফলই হোন না কেন, ব্যর্থতা আসবেই।

৪০. ব্যর্থতা খারাপ নয়। এটি শিক্ষা দেয়।

৪১. ঝুঁকি নিতে হবে। তবে পাগলামি নয়।

৪২. ব্যর্থতা আশা করবেন না। তবে এর জন্যে প্রস্তুত থাকতে হবে। বাঁচতে বিকল্প ব্যবস্থা রাখবেন।

৪৩. এমন সময় আসবে যখন দৃশ্যমান সবকিছু নিয়ে জুয়া খেলতে হবে। তবে সময় কখন আসবে তা কেউ বলতে পারে না।

৪৪. শ্রদ্ধা ও বিনয়ের সঙ্গে ‘না’ বলতে শিখুন।

৪৫. যত পারুন ‘হ্যাঁ’ বলুন।

৪৬. কৌশলগত ক্ষেত্রে ‘হ্যাঁ’ বলার সঙ্গে কিছু সীমাবদ্ধতা জুড়ে দিন।

৪৭. যা চাইছেন তা পেলেই যে সুখী হবেন, তা নয়। তৃপ্তির সঙ্গে মনের সুখ আসে।

৪৮. জটিল ও কঠিন ব্যক্তিত্বের সঙ্গে কাজ করার অভিজ্ঞতা সবখানেই হবে। এদের জয় করা চ্যালেঞ্জের মতো।

৪৯. কি চান তার ওপর দৃষ্টি দিন।

৫০. যদি সত্যিকার অর্থেই কিছু বদলে দিতে চান, তবে তা করার মতো অবস্থান ও ক্ষমতা লাভ করতে হবে আপনাকে।

Source:http://www.kalerkantho.com/

It's only fair to share...Share on FacebookShare on Google+Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *