একাধিক পেশায় জড়িত যারা

একাধিক পেশায় জড়িত যারা

আজকালের এই ব্যস্ত জীবনে আমরা অনেকেই দুটো চাকরি করি। কিংবা অনেকেই ২/৩ টে পেশার সাথে জড়িত। কারো হয়তো নিজের ব্যবসার পাশাপাশি আছে কোনও সৃজনশীল কাজ, কারো হয়ত পূর্ণ সময় কাজের পাশাপাশি আছে পার্ট টাইম কাজ, কারো হয়তো সব গুলো কাজই পার্ট টাইম। ব্যাপার যাই হোক না কেন, একাধিক পেশা সামলাবার যে কি যন্ত্রণা সেটা কেবল ভুক্ত ভোগীই জানেন। সারাদিন দৌড়ের উপরে তো কাটে, উল্টো যেন কাজ করেও শেষ করা যায়না। আবার লেগে থাকে নানান রকম সমস্যা একের পর এক, ভুল ভ্রান্তি আর অভিযোগও পিছু ছাড়ে না।

সেই সমস্ত ঝামেলা থেকে মুক্তি পাবার কিন্তু আছে বেশ সহজ কিছু উপায়। পড়েই দেখুন না পরামর্শ গুলো, হয়তো আপনার নিজের কিছু সমস্যার সমাধান মিলে যাবে এখানেই।

– একাধিক পেশায় প্রথমেই যে সমস্যাটা হয়, সেটা হলো কোনও একটি কাজ অবহেলিত হয়। দেখাজায় সৃজনশীল কাজটাই বেশিরভাগ সময় অবহেলিত হয়। কিংবা যে কাজে উপার্জন বেশি হচ্ছে, সেটিকে গুরুত্ব দিতে গিয়ে অন্য গুলো অবহেলার শিকারে পরিণত হয়। এই কাজটা কখনোই করবেন না। যেহেতু সবগুলোই আপনার পেশা, তাই সবগুলোকেই সমান গুরুত্ব দিতে চেষ্টা করুন। সমানভাবে আন্তরিক না হলে কিন্তু একাধিক পেশা ধরে রাখতে পারবেন না, দিন শেষে একটি না একটি হাত থেকে বের হয়ে যাবেই যাবে।

– একাধিক পেশার ক্ষেত্রে সবচাইতে জরুরী হচ্ছে সময় বিভাজনটা। তাই ভাবনা চিন্তা করে নিজের কাজের সময়টা ভাগ করে রাখুন। একটা থেকে সময় বের করে অন্যটা করে ফেলবো, এই ধরনের জোড়াতালি দেবার ভাবনা ত্যাগ করুন। “ম্যানেজ করে ফেলবো” ধরনের ভাবনা দিয়ে আর যাই হোক না কেন, পেশাদারিত্ব প্রদর্শন করা যায়না। সুতরাং অবশ্যই প্রতিটি পেশার জন্য নির্দিষ্ট সময় ঠিক করে রাখুন। এবং সেই সময়ে কেবল উক্ত কাজটির দিকেই মনযোগ দিবেন।

– একটি কর্মক্ষেত্রে গিয়ে অন্য কর্মক্ষেত্রের কাজ করবেন না। কিংবা অন্য কর্মক্ষেত্রের ঝামেলা নিয়ে মাথা ঘামাবেন না। এটা খুবই অপেশাদার আচরণ। যতটা সম্ভব মস্তিষ্ককে মুক্ত রাখুন এসব হতে।

– একটি কর্মক্ষেত্র সম্পর্কে অপর ক্ষেত্রে গিয়ে কোনও খারাপ কথা বা দুর্নাম করবেন না। এতে আপনার নিজেরই সম্মানহানি হবে।

– কাজ না করার বাহানা হিসাবে কখনোই একাধিক পেশাকে প্রদর্শন করবেন না। সেটায় কেবল আপনার অপেশাদার আচরণই প্রকাশ পাবে।

– নিজের কর্মক্ষেত্র গুলোতে নির্ধারিত সময়ে যাওয়া অভ্যাস করুন, তাতে কাজের জন্য সময় বেশি পাবেন।

– দায়সারা ভাবে কোনও কাজ করবেন না, বা কেবল করতে হয় বলে করবেন না।

– যে পেশাটি থেকে উপার্জন কম বা যে পেশাটি পার্ট টাইম, তাতে কখনো ফাঁকি দেয়ার চেষ্টা করবেন না। মনে রাখবেন, কাজটি আপনার প্রয়োজন বলেই কিন্তু আপনি করছেন।

– নিজের শরীর এবং সুস্থতার দিকে একটু বাড়তি মনযোগী হবেন অবশ্যই। একাধিক কাজ করছেন যখন, শরীরটাও তো ঠিক রাখা চাই।

– যোগ ব্যায়াম এবং ধ্যানের অভ্যাস করতে পারেন। তাতে মন প্রশান্ত থাকবে। প্রশান্ত মন একাধিক কাজ সুন্দর মতন সামলে নিতে পারে।

– একটি ডায়রি রাখবার অভ্যাস করুন, যাতে প্রতিদিনের কাজগুলো টুকে রাখুন। একাধিক কর্মক্ষেত্র থাকলে কাজের তালিকা এলোমেলো হয়ে যাওয়াই অত্যন্ত স্বাভাবিক।

Souce:www.priyo.com

It's only fair to share...Share on FacebookShare on Google+Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn

One thought on “একাধিক পেশায় জড়িত যারা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *